গুলশানে জিম্মি সংকট: নিহত ২ পুলিশ কর্মকর্তা, আহত ২৫, অভিযান চলছে

জুলাই ০২, ২০১৬ ০৩:০৭:পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে অস্ত্রধারীদের হামলার ঘটনায় আহতদের মধ্যে বনানী থানার ওসি সালাউদ্দিনের পর ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলামেরও মৃত্যু হয়েছে। বাংলাদেশে নজিরবিহীন এই হামলার পর ওই বেকারিতে জিম্মি সঙ্কট তৈরি হয়েছে, আহত হয়েছেন অন্তত ২৫ জন। এ হামলার দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস দায় স্বীকার করেছে বলে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।

আইএসের মুখপত্র আমাক-এ শুক্রবার রাতে দায় স্বীকারের খবর এসেছে বলে রয়টার্স, সিএনএন জানিয়েছে। আইএস দাবী করেছে ২০ জনের মত নিহত হয়েছেন। তবে আইন শৃংখলা বাহিনী আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো কোন তথ্য জানায়নি।

ঘটনার শুরু রাত পৌনে ৯টার দিকে; আট থেকে ১০ জন যুবক হঠাৎ সেখানে ঢুকে পড়ে এবং গুলি ও বোমা বিস্ফোরণ শুরু করে বলে বেকারির সুপারভাইজার সুমন রেজার তথ্য।

প্রায় আধা ঘণ্টা পর সেখানে পুলিশ উপস্থিত হলে শুরু হয় তুমুল গোলাগুলি। পুলিশ ওই বেকারিতে ঢোকার চেষ্টা করলে ভেতর থেকে গ্রেনেড ছোড়া হয় বলে একজন পুলিশ কর্মকর্তা জানান।

বনানীর ওসি সালাউদ্দিন বনানীর ওসি সালাউদ্দিন ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার শেখ মারুফ হাসান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আহতদের মধ্যে বনানীর ওসি সালাউদ্দিনকে রক্তাক্ত অবস্থায় ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
আর রাত সোয়া ১টার দিকে একই হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে এসে গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার শেখ নাজমুল আলম সাংবাদিকদের জানান, সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলামেরও মৃত্যু হয়েছে।

গুলশানের কূটনৈতিক পাড়ায় ৭৯ নম্বর রোডে হলি আর্টিজান বেকারি ও আশপাশের এলাকা ঘিরে রেখেছে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি সদস্যরা।

র‌্যাব ‌মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, “সেখানে কিছু অস্ত্রধারী প্রবেশ করেছে। এইটাই আমাদের কাছে খবর। আমরা চেষ্টা করব, যারা ভেতরে আছেন, যারা খেতে এসেছিলেন, তাদের জীবনের নিরাপত্তা অবশ্যই আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। বিপথগামী যারা ভেতরে আছেন, তাদের সঙ্গেও আমরা কথা বলতে চাই।

Related Post