‘দেশীয় ছবিকে শেষ করতেই ভারতীয় ছবি আমদানি’

জানুয়ারি ২০, ২০১৫ ০৬:০১:অপরাহ্ণ

varotio-chobi

 

ভারতীয় ছবি আমদানি ও প্রদর্শনের বিরুদ্ধে চলচ্চিত্রশিল্পী, পরিচালক ও কলাকুশলীদের সংবাদ সম্মেলনভারতীয় ছবি আমদানি ও প্রদর্শনের বিরুদ্ধে অংশ নিলেন চলচ্চিত্রশিল্পী, পরিচালক ও কলাকুশলীরা। আজ মঙ্গলবার দুপুরে এফডিসির সামনের রাস্তায় জড়ো হয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন তাঁরা। পরে এফডিসি চত্বরে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ঐক্যজোটের ব্যানারে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ভারতীয় ছবি প্রদর্শনের প্রতিবাদে আজ থেকে কর্মবিরতি পালন করছেন চলচ্চিত্রশিল্পী, পরিচালক ও কলাকুশলীরা। আগামীকাল প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেবেন তাঁরা।
মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন শাকিব খান, রুবেল, অমিত হাসান, ওমর সানি, জায়েদ খান, শাহ রিয়াজ, এ টি এম শামসুজ্জামান, নিরব, ইমন, শাহনূর, নাসরিন, মিশা সওদাগর, মৌসুমী, সোহানুর রহমান সোহান, মিজু আহমেদ, আজিজ রেজা, মুশফিকুর রহমান গুলজার, বদিউল আলম খোকন, দেলোয়ার জাহান ঝন্টু, রকিবুল আলম রকিব, গাজী মাহবুব, শাহিন সুমন, মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজসহ আরও অনেকে।
আগামী শুক্রবার দেশের বেশ কিছু প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে হিন্দি ছবি ওয়ান্টেড। এই ছবির মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর বাংলাদেশে হিন্দি ছবি প্রদর্শনের সুযোগ তৈরি হচ্ছে। এ ছাড়া আরও তিনটি ভারতীয় ছবি প্রদর্শনের অপেক্ষায় রয়েছে। এ কারণে কয়েক দিন ধরেই প্রতিবাদমুখর হয়ে উঠেছে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠন ও তারকারা। এরই অংশ হিসেবে মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় এফডিসিতে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির কার্যালয়ের সামনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলন থেকে জানানো হয়, কাল বুধবার চলচ্চিত্র-সংশ্লিষ্ট ১৯টি সংগঠনের সবাই এফডিসি থেকে প্রেসক্লাব অভিমুখে বিক্ষোভ মিছিল করবে। সেখানে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়, উপমহাদেশীয় ছবি অথবা হিন্দি ছবি আমদানির মাধ্যমে দেশীয় চলচ্চিত্রকে শেষ করে দিতে সর্বোচ্চ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। এ দেশের চলচ্চিত্র শিল্পকে ধ্বংস করার জন্য ভারতীয় ছবি আমদানি করা হচ্ছে বলে মতামত দেন বক্তারা।
মানববন্ধন প্রসঙ্গে অভিনেতা শাকিব খান বলেন,§‘অশ্লীলতার সেই অন্ধকার সময় কাটিয়ে উঠে যখন চলচ্চিত্র শিল্প আলোর মুখ দেখছে, তখনই একটা মহল উঠেপড়ে লেগেছে এটি ধ্বংস করতে, যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। যেকোনো মূল্যে বাইরের ছবি আমদানি প্রতিহত করব আমরা।’
এদিকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি ভারতীয় ছবি প্রদর্শনের পক্ষে। তাঁদের যুক্তি, মন্দা বাণিজ্যের কারণে দেশের বেশির ভাগ প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ হওয়ার পথে। তাই টিকে থাকার স্বার্থেই ভারতীয় ছবি প্রদর্শনের উদ্যোগ নিয়েছেন তাঁরা।

Related Post