বাংলাদেশের প্রতিরোধে অস্ত্র-নৌকা ফেলে পালাল বিএসএফ

জুলাই ১০, ২০১৫ ১২:০৭:অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে হামলার সময় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে (বিএসএফ) প্রতিরোধ করেছেন স্থানীয় গ্রামবাসী ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

সীমান্তে বাংলাদেশিদের গুলি করে হত্যার জন্য কুখ্যাত বিএসএফ সদস্যরা একটি অস্ত্র-গুলি ও তাদের ব্যবহৃত একটি নৌকা ফেলে পালিয়ে যায়।

শুক্রবার ভোরে কলারোয়া উপজেলার মাদরা সীমান্তের প্রধান পিলার ১৩ এর সাব পিলার ৩ এর রিভার পিলার ১১ এর কাছে এ ঘটনা ঘটে। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে পতাকা বৈঠক হলেও ওই সীমান্তজুড়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গরু রাখালরা বাংলাদেশে কয়েকটি ভারতীয় গরু নিয়ে এসেছে এমন খবরে সেগুলো ফিরিয়ে নিতেই বিএসএফ বাংলাদেশ ভূখণ্ডে ঢুকে অতর্কিতে গ্রামবাসীকে ধাওয়া করে। এ সময় ঐক্যবদ্ধভাবে তাদের প্রতিহত করা হয়।

বিজিবির মাদরা কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার আবদুর রব জানান, ভোরে প্রবল বৃষ্টির ভেতর আকস্মিকভাবে বিএসএফের হাকিমপুর ক্যাম্পের কয়েক সদস্য একটি স্পিডবোট ও একটি দেশি নৌকায় সোনাই নদীর বাংলাদেশ কূলে চলে আসে। তাদের মধ্যে দুই বিএসএফ সদস্য অস্ত্র নিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ঢুকে কয়েক গ্রামবাসীকে তাড়া করে।

এ সময় গ্রামবাসী তাদের প্রতিহতের চেষ্টা করলে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। একপর্যায়ে বিজিবি সদস্যরা এগিয়ে এলে বিএসএফ সদস্যরা দ্রুত পালিয়ে যায়।

সুবেদার আবদুর রব আরো জানান, পালিয়ে যাওয়ার সময় বিএসএফ সদস্যরা তাদের ব্যবহৃত ২০ রাউন্ড গুলিসহ একটি এসএলআর ও একটি নৌকা ফেলে রেখে যায়।

এদিকে, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাৎক্ষণিকভাবে মাদরা সীমান্তে বিজিবির সাতক্ষীরা ৩৮ ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর নজির আহমেদ বকসি ও বিএসএফএর ১৫২ ব্যাটালিয়নের কমান্ড্যান্ট রাজেশ কুমার পতাকা বৈঠক করেন।

বৈঠক সূত্র জানায়, বৈঠকে উভয়পক্ষের সমঝোতার ভিত্তিতে বিএসএফকে তাদের অস্ত্র ও নৌকা ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

Related Post