লক্ষ্মীপুরের ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ : উপজেলা চেয়ারম্যানসহ আহত ১০

অক্টোবর ১৮, ২০১৫ ০৬:১০:অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জে যুবলীগের সংবর্ধনা ও বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী গ্রন্থ বিতরণ অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় চেয়ার মারামারির ঘটনাও ঘটেছে। এতে জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপুসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

আজ শনিবার বিকাল ৫ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় যুবলীগের সংবর্ধনা ও বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী গ্রন্থ বিতরণ অনুষ্ঠান চলাকালে চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক কাজী বাবলু ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মোসলেহ উদ্দিন মুন্নার সমর্থকদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থালে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, চন্দ্রগঞ্জ মডেল স্কুল মাঠে স্থানীয় ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির পরিচিতি সভা ও ফ্লোরিডা স্টেট যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক রমিজ উদ্দিন আহম্মদের সংবর্ধনা এবং বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী গ্রন্থ বিতরণ অনুষ্ঠান চলছিল। এসময় দর্শক সারিতে চেয়ারে বসাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ নেতা মুন্না ও কাজী বাবলু সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এক পর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও চেয়ার ছোড়া ছুড়ির ঘটনা ঘটে। এসময় জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে আহত হন। এর আগে স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা মাসুদ, হৃদয় ও সজীবসহ আরো ৯ ছাত্রলীগ নেতাকর্মী আহত হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনায় স্বাভাবিকভাবে অনুষ্ঠান পরিচালিত হয়। সভায় চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের নবগঠিত কমিটির আহ্বায়ক খায়রুল ইসলাম ভূঁইয়া বিট্টুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিয়া মো. গোলাম ফারুক পিংকু।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন, কেন্দ্রীয় যুবলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সোয়াইব হোসেন ফারুক, এ কে এম সালাহ্ উদ্দিন টিপু।

সভা শেষে রমিজ উদ্দিন ও ইউনিয়ন যুবলীগ কমিটির নেতৃবৃন্দকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন অতিথিবৃন্দ। এসময় বিভিন্ন ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও উপজেলা যুবলীগের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনীর ৫শ’ বই বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠান শেষে রাতে ঢাকা থেকে আগত ব্যান্ড শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।
ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় চেয়ার মারামারির ঘটনাও ঘটেছে। এতে জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপুসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

আজ শনিবার বিকাল ৫ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় যুবলীগের সংবর্ধনা ও বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী গ্রন্থ বিতরণ অনুষ্ঠান চলাকালে চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক কাজী বাবলু ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মোসলেহ উদ্দিন মুন্নার সমর্থকদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থালে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, চন্দ্রগঞ্জ মডেল স্কুল মাঠে স্থানীয় ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির পরিচিতি সভা ও ফ্লোরিডা স্টেট যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক রমিজ উদ্দিন আহম্মদের সংবর্ধনা এবং বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী গ্রন্থ বিতরণ অনুষ্ঠান চলছিল। এসময় দর্শক সারিতে চেয়ারে বসাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ নেতা মুন্না ও কাজী বাবলু সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এক পর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও চেয়ার ছোড়া ছুড়ির ঘটনা ঘটে। এসময় জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে আহত হন। এর আগে স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা মাসুদ, হৃদয় ও সজীবসহ আরো ৯ ছাত্রলীগ নেতাকর্মী আহত হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনায় স্বাভাবিকভাবে অনুষ্ঠান পরিচালিত হয়। সভায় চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের নবগঠিত কমিটির আহ্বায়ক খায়রুল ইসলাম ভূঁইয়া বিট্টুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিয়া মো. গোলাম ফারুক পিংকু।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন, কেন্দ্রীয় যুবলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সোয়াইব হোসেন ফারুক, এ কে এম সালাহ্ উদ্দিন টিপু।

সভা শেষে রমিজ উদ্দিন ও ইউনিয়ন যুবলীগ কমিটির নেতৃবৃন্দকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন অতিথিবৃন্দ। এসময় বিভিন্ন ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও উপজেলা যুবলীগের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনীর ৫শ’ বই বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠান শেষে রাতে ঢাকা থেকে আগত ব্যান্ড শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

Related Post