লক্ষ্মীপুরে ৩০ গ্রাম প্লাবিত

আগস্ট ০৭, ২০১৬ ০৮:০৮:পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: লক্ষ্মীপুরে ৩০ গ্রাম প্লাবিত লক্ষ্মীপুরের রামগতি ও কমলনগর উপজেলায় মেঘনা উপকূলীয় কমপক্ষে ৩০টি গ্রাম জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে। গত তিন দিনের টানা বৃষ্টি ও মেঘনা নদীতে স্বাভাবিকের চেয়ে ৪ থেকে ৫ ফুট পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপকূলীয় গ্রামগুলো জোয়ারে প্লাবিত হয়। এতে চরম দুভোর্গে রয়েছে কয়েক হাজার মানুষ। শনিবার রাত ৮টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ওই সব এলাকার কয়েক হাজার মানুষ পানি বন্দী হয়ে রয়েছেন।

প্লাবিত গ্রামগুলো হলো, কমলনগর উপজেলার চর কালকিনি, মতিরহাট, জনতাবাজার, হাজি মার্কেট, নাছিরগঞ্জ, তালতলি, দক্ষিণ মার্টিন, হাজিপাড়া, মধ্য মার্টিন, বলিরপোল, নবীগঞ্জ, কাদিরপান্ডিতের হাট, মাতাব্বরহাট, ফলকন, পাটারিরহাট। রামগতি উপজেলার বড় খেরী, আলেকজান্ডার বালুর চর, চর গাজি, চর আলগীসহ ৩০টি গ্রাম।

মেঘনা জোয়ারের পানিতে আউশ ধানের মাঠ, আমনের বীজতলা ও রোপা আমন ক্ষেত পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এছাড়া পুকুর ও ঘেরের মাছে পানিতে ভেসে গেছে।

কমলনগর উপজেলার সাহেবেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবুল খায়ের জানান, কয়েক বছরের মেঘনা নদীর ভয়াবহ ভাঙনে বেড়িবাঁধ মেঘনা নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। নদীতে পানি বৃদ্ধি পেলেই জোয়ারে ওই সব গ্রাম প্লাবিত হয়ে এলাকায় দুর্ভোগ নেমে আসে।

লক্ষ্মীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ সহকারী প্রকৌশলী মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গত কয়েকদিন থেকে মেঘনা নদীতে পানির চাপ বেশি। স্বাভাবির চেয়ে ৪ থেকে ৫ ফুট পানি বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। বেড়িবাঁধ না থাকায় জোয়ার এলেই উপকূলীয় এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়ে। এ অবস্থা অব্যহত থাকলে আগস্টের মাঝামাঝিতে বন্যা দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি।

Related Post