সরকারী মুজিব কলেজের নতুন ভবন নির্মানে ওবায়দুল কাদেরের ৯ কোটি টাকার অনুদান

মার্চ ২৯, ২০১৭ ০২:০৩:পূর্বাহ্ণ

প্রতিবেদক — বসুরহাট সরকারী মুজিব কলেজ এর বহুতল ভবন নির্মানের জন্য ৯ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

উল্লেখ্য গত ৮ মার্চ সরকারী মুজিব কলেজে একাদশ শ্রেণীর নবীন বরন ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওবায়দুল কাদের। সেসময় মন্ত্রী কলেজের বিভিন্ন সমস্যাদি শুনেন এবং তিনি খুব শীঘ্রই ব্যবস্থা নিবেন বলে কর্তৃপক্ষকে অাশ্বাস দেন। আর সেই সূত্র ধরে গতকাল সরকারী মুজিব কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর জিয়া উদ্দিন এর কাছে মুজিব কলেজের বহুতল ভবণ নির্মানের জন্য ৯ কোটি টাকা বরাদ্দের খবরটি পৌঁছান ওবায়দুল কাদেরের ব্যক্তিগত সহকারী নুরুল করিম জুয়েল।

মন্ত্রীর অনুদানের খবর পেয়ে অধ্যক্ষ সকলকে বিষয়টি অবগত করেন এবং মুহুর্তেই খবরটি সর্বদিকে ছড়িয়ে পড়ে, এতে ছাত্রমহলের পক্ষ থেকে ওবায়দুল কাদের কে শুভেচ্ছা ও কৃতঙ্গতা প্রকাশ করেন। এছাড়াও কৃতঙ্গতা প্রকাশ করেন সরকারী মুজিব কলেজের অধ্যক্ষ প্রপেসর জিয়াউদ্দিন, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, কোম্পানিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সহ সভাপতি নুরুল করিম জুয়েল, স্বাধীনতা ব্যাংকার্স পরিষদের সদস্য ফখরুল ইসলাম রাহাত, কোম্পানিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দীন মুন্না, সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম ফয়সাল, বসুরহাট পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ ফরহাদ লিংকন, সরকারী মুজিব কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নুর এ মাওলা রাজু, সাধারন সম্পাদক মোবারক হোসেন রিয়াদ প্রমুখ।

সবার বিশ্বাস মুজিব কলেজে অনার্স কোর্স চালু করার লক্ষে হয়তো মন্ত্রী এত বিশাল ভবনের উদ্যেগ নিয়েছেন। গতকাল এই খবর পাওয়ার পর থেকে আজ পুরো কলেজ ক্যাম্পাসে সাধারন ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে।

এত বড় খুশির খবর পেছে ছাত্র,শিক্ষক অনেকেই তাদের ব্যাক্তিগত ফেইসবুক টাইমলাইনে ক্ষুদে বার্তা দিয়ে সেতু মন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। নবীন ছাত্রছাত্রীরা জানান আমরা সরকারী মুজিব কলেজের ছাত্রছাত্রীরা আসলেই গর্বিত যে নবীন বরণের আমেজ যেতে না যেতেই মন্ত্রীমহোদয় আমাদের এত বড় খুশির খবর দিয়েছেন। মন্ত্রী মহোদয়ের কাছে এখন আমাদের একটাই দাবী, আর তা হল মুজিব কলেজে অনার্স কোর্স চালু করা। এছাড়াও অনেক দূর থেকে আসা শিক্ষার্থীরা জানান তাদের জন্য যদি মন্ত্রী মহোদয়ের পক্ষ থেকে দুইটি বাসেরর ব্যবস্থা করে দেওয়া হয় তাহলে তাদের যাতায়াতের কষ্টটা অনেকাংশেই লাঘব হতো।

শিক্ষকদের কাছে তাদের অনুভূতির কথা জানতে চাইলে তারাও মন্ত্রী মহোদয়কে অভিনন্দন এবং কৃতজ্ঞতা জানান। তারা আশা করেন অতি শীঘ্রই নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জের কৃতি সন্তান ওবায়দুল কাদের তার কোম্পানিগঞ্জের সাধারন ছাত্রছাত্রীদের কথা চিন্তা করে মুজিব কলেজে অনার্স কোর্স চালু করার ঘোষনা দিবেন।

Related Post