ছাত্রীসহ ৩ নারীকে পিটিয়ে আহত : সড়ক অবরোধ

আগস্ট ২৫, ২০১৬ ০১:০৮:পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: শালিশের নাম করে নোয়াখালীর সুবর্নচরে রাবেয়া বেগম(১৫) নামে এক স্কুল ছাত্রীসহ ৩ নারীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় বেদড়ক পিটিয়ে আহত করেছে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন। আহত ছাত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার ২নং চরবাটা ইউনিয়ন পরিষদে গ্রাম্যশালিশে এ ঘটনা ঘটে। বুধবার এ ঘটনার প্রতিবাদে এবং চেয়ারম্যানের বিচার দাবীতে সড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাবেয়া উপজেলার চরবাটা ইউপির মধ্যচরবাটা গ্রামের ছায়েদুল হক এর বাড়ির দিন মজুর মো: হানিফ এর মেয়ে। সে চরবাটা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০শ্রেণীর ছাত্রী। এ সময় রাবেয়ার বাবা মো: হানিফ(৫০),মা খতিজা খাতুন (৪০),খালা শামছুর নাহার(৩৫)কে ও পিটিয়ে আহত করেছে চেয়ারম্যান।
আহত রাবেয়ার বাবা মো: হানিফ জানায় , গত কয়েক মাস ধরে একই বাড়ির হাসান এর পরিবারে সাথে পারিবারিক ঝগড়া বিবাধ চলছে । এ নিয়ে হাসান গ্রাম্য শালিশে তার পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে চেয়ারম্যান পরিষদে তাকেসহ পরিবারের সবাইকে শালিশে উপস্থিত হতে বলে। শালিশে উপস্থিত হওয়া মাত্রই তাকে ও তার স্ত্রী এবং শালিকাকে চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে বেদড়ক পিটািতে থাকেন। পরে আমার স্কুল পড়–য়া মেয়ে রাবেয়াকে চৌকিদার দিয়ে বাড়ি থেকে ধরে এনে পরিষদে উপস্থিত শত শত লোকের সামনে পিটিয়ে আহত করলে সে এক পযার্য়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। এসময় রাবেয়ার চিৎকারে কোন লোক এগিয়ে আসেনি । রাত ১০টার পরে চেয়ারম্যন পরিষদ থেকে চলে যাওয়ার পর সে তার মেয়ে, স্ত্রী ও শালিকাকে উদ্ধার করে চরজব্বর উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। এঘটনায় যাতে কোন মামলা করা না হয় সেজন্য চেয়ারম্যান নানা ভাবে হুমকি দিচ্ছে। তাই তারা এখনো মামলা করতে ভয় পাচ্ছে।
রাবেয়ার মা খতিজা খাতুন বলেন, চেয়ারম্যান এর পায়ে ধরে চিৎকার করার পরও চেয়ারম্যান আমার স্কুল পড়ুয়া ছোট মেয়েকে ছেড়ে দেয়নি । খতিজা এঘটনার সরকারের কাছে উপযুক্ত বিচার দাবী করেছেন।

চরবাটা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: নিজাম উদ্দিন বলেন “রাবেয়া ঔ স্কুলের মানবিক শাখার ছাত্রী । চেয়ারম্যান শালিশের নামে ডেকে তাকে ও তার পরিবারকে নির্যাতন করেছেন। এবিষয়ে তিনি মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ,উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবহিত করবেন।
চরজব্বার হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক(আরএমও) ডাঃ আবদুর রহিম জানান, রাবেয়া, রাবেয়ার খালা শামছুন্নাহার,মা খতিজা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। রাবেয়ার পিটে এবং কোমরের নিছে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের জখম রয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার হারুনুর রশিদ জানান, তিনি দাপ্তরিক কাজে জেলা সদরে ছিলেন। সাংবাদিকদের মাধ্যমে ঘটনা জেনেছে। তিনি বিষয়টি দেখবেন।
থানার ভারপ্রাপ্তকর্মকর্তাকে একাধিকবার ফোন করে পাওয়া যায়নি। তবে স্থানীয় সাংবাদিকদের তিনি জানিয়েছেন, এঘটনায় এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ এলে ব্যবস্থা নিবেন।
এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে চেষ্টা করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। স্থানীয় সাংবাদিকরা জানান, তাঁর সাথে এবিষয়ে কথা বলতে চাইলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।
শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ:
নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নে রাবেয়া বেগম (১৫) নামে এক স্কুলছাত্রী ও তার পরিবারের লোকজনকে মধ্যযুগীয় কায়দায় এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করার প্রতিবাদে মানববন্ধন, সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে চরবাটা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ সময় শিক্ষার্থীরা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিচার দাবি করেন।
বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে চরবাটা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের প্রধান সড়ক অবরোধ করে তারা এ কর্মসূচি পালন করে। পরে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে ওই সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
মানববন্ধন থেকে রাবেয়ার সহপাঠিরা এঘটনায় দোষী চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেনকে অতিদ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান। অন্যথায় তারা এই আন্দোলন অব্যাহত রাখবে।
এদিকে আহত স্কুলছাত্রী রাবেয়া বেগমের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে মঙ্গলবার চরজব্বর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নোয়াখালী মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

Related Post