সেনবাগে ছাত্র লীগে বিদ্রোহ: সংঘর্ষে আহত ১০

জুলাই ২৪, ২০১৫ ০৮:০৭:পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা নিয়ে নিজ দলের দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১০জন আহত হয়েছে। এসময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত সেনবাগ বাজারে দফায় দফায় এ ঘটনা ঘটে। এসময় স্থানীয়দের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত ১৯ জুলাই রোববার বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কার্যনির্বাহী সংসদ থেকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি এইচ.এম বদিউজ্জামান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম সাক্ষরিত একটি প্যাডে আগামী এক বছরের জন্য সেনবাগ উপজেলায় ছাত্রলীগের সভাপতি ফিরোজ আলম রিগান ও মাজেদুল ইসলাম তানভীরকে সাধারণ সম্পাদকে অনুমোদন দেয়।

এই কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে বুধবার বিকেলে সেনবাগ পৌরসভার সাহপুর স্টিল ব্রিজ এলাকা থেকে বর্তমানে ঘোষিত উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফিরোজ আলম রিগানের সমর্থকরা একটি আনন্দ মিছিল বের করে। একই সময় নতুন কমিটির বিরুদ্ধে সেনবাগ মাদ্রাসা এলাকা থেকে সেনবাগ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম বাবুর সমর্থকরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। তাদের মিছিলটি সেনবাগ বাজারের তাজ নাহার হোটেলের সামনে এলে পুলিশ তাতে বাঁধা দেয়। এসময় বিপরীত দিক থেকে আসা রিগানের সমর্থকদের সাথে বাবুর সমর্থকরা মুখোমুখি হলে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১০জন কর্মী আহত হয়। এসময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কয়েক রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। আহতদের তাৎক্ষনিক নাম পরিচয় জানা যায়নি।

সেনবাগ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি (নতুন ঘোষিত) ফিরোজ আলম রিগান জানান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ থেকে তাঁকে (রিগান) সভাপতি ও তানভীরকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। যার অনুলিপি গত ২০জুলাই রাতে তিনি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে নিয়ে আসেন। বিকেলে নতুন কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে সেনবাগ বাজারে ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা একটি আনন্দ মিছিল বের করলে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বাবুর সমর্থকরা তাতে হামলা চালায়। এসময় ৭জন কর্মী আহত হয়। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

নিজেকে সেনবাগ উপজেলা ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি দাবী করে সাইফুল ইসলাম বাবু জানান, এখনো জেলা ছাত্রলীগের কোন সম্মেলন হয়নি। তাই আমাদের উপজেলার বর্তমান কমিটি কার্যকর রয়েছে। আর ছাত্রলীগের ঘটনতন্ত্রে কেন্দ্র থেকে কখনো উপজেলা ছাত্রলীগের কোন কমিটি ঘোষনা করার নিয়ম নেই। কিন্তু মঙ্গলবার থেকে রিগানকে সভাপতি ও তানভীরকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে বলে শুনতেছি। কিন্তু কেন্দ্র থেকে আমাদের কোন কিছু জানানো হয়নি। তাই  এঘটনার প্রতিবাদে উপজেলা ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করলে রিগানের সমর্থকরা তাতে হামলা চালায় এবং পুলিশ টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। এতে আমাদের ৩/৪জন কর্মী আহত হয়।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা কামাল বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, উপজেলা ছাত্রলীগের ঘোষিত নতুন কমিটি একটি আনন্দ মিছিল বের করলে ছাত্রলীগের বিদ্রোহী গ্রুপের সাথে একটু ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ২রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে তাদের ছাত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

Related Post